অনলাইন ডেস্ক :

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, সরকারের আংশিক সেবা কার্যক্রমে বিদ্যমান অচলাবস্থা কাটাতে তিনি জরুরি অবস্থা ঘোষণা করছেন না। আজ রবিবার এ অচলাবস্থার টানা ২৩তম দিন। ট্রাম্প মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের জন্য ৫৭০ কোটি মার্কিন ডলার চাইলে বিরোধী ডেমোক্র্যাট দলের কংগ্রেস সদস্যরা এর বিরোধিতা করেন।

ফক্স নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি কংগ্রেসের অনুমোদন ছাড়াই এই অর্থের জন্য অবিলম্বে জরুরি অবস্থা ঘোষণার সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়ে বলেন, তিনি একটি সমঝোতায় আসার জন্য বিরোধী ডেমোক্র্যাটদের আরো সময় দিতে চান। শনিবার রাতে এ সাক্ষাৎকারে তিনি আরও বলেন, ‘আমি তাদের দায়িত্বশীল আচরণ করার জন্য আরও একবার সুযোগ দিতে চাই।’ শনিবার ট্রাম্প তার অবস্থানের সপক্ষে বেশ কয়েকটি টুইট বার্তা পাঠান। তিনি এ অচলাবস্থা নিরসনের জন্য ওয়াশিংটন এসে বিষয়টি মিমাংসার জন্য ডেমোক্র্যাট সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানান। টুইটারে তিনি বলেন, ‘ডেমোক্র্যাটরা ১৫ মিনিটের মধ্যেই এ অচলাবস্থা মিটিয়ে ফেলতে পারেন।’ তিনি আরও বলেন, ‘ডেমোক্র্যাটরা ‘ছুটি’ কাটিয়ে কাজে না আসা পর্যন্ত আমরা দীর্ঘ সময় ধরে তাদের অপেক্ষায় থাকব। আমি হোয়াইট হাউসে স্বাক্ষরের জন্য প্রস্তুত রয়েছি।’ কিন্তু অধিকাংশ আইনপ্রণেতা শুক্রবার শহর ছেড়ে চলে গেছেন এবং সোমবারের আগে আর ফিরে আসবেন না। সোমবারের আগে এই বিষয়টি সমাধানের সম্ভাবনা খুবই কম। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে ওয়াশিংটনে অচলাবস্থা দেখা দিয়েছে। দেশব্যাপী এর প্রভাব পড়েছে। ট্্রাম্প ও ডেমোক্র্যাট সদস্যদের মতবিরোধের জেরে সৃষ্টি হওয়া অচলাবস্থার কারণে এফবিআই এজেন্ট, এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলার ও জাদুঘর স্টাফসহ ৮ লাখ কেন্দ্রীয় কর্মী শুক্রবার তাদের পারিশ্রমিক পাননি।
খবর এএফপি

Share Button