আন্তর্জাতিক একাদশ সংসদ নির্বাচন

শেখ হাসিনাকে নরেন্দ্র মোদির অভিনন্দন

অনলাইন ডেস্ক:

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ায় টেলিফোনে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে ফোন করে রোববার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভের জন্য তাকে, তার দলকে এবং বাংলাদেশের জনগণকে অভিনন্দন জানান।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন। মোদি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের এই বিজয় হচ্ছে আপনার দক্ষ নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্জিত অসামান্য উন্নয়নের প্রতিফলন।’ ওই সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের উন্নয়ন প্রচেষ্টায় অতীতের মতো তার দেশের অব্যাহত সমর্থনের আশ্বাস দেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জবাবে নরেন্দ্র মোদি ও তার দেশের জনগণকে শুভেচ্ছা জানান। ফোন করার জন্য মোদিকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, রোববারের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তার দলের বিশাল বিজয়ের পর নরেন্দ্র মোদিই প্রথম রাষ্ট্র বা সরকার প্রধান যিনি তাকে টেলিফোন করেছেন।

এছাড়াও ভারতের ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টি-বিজেপি’র পক্ষ থেকে আওয়ামী লীগকে আলাদাভাবে অভিনন্দন জানানো হয়েছে। রোববার সকালে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে কথা বলে অভিনন্দন জানান বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব। আওয়ামী লীগের উপ দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

টেলিফোনে আগামী দিনগুলোতে দ্বিপাক্ষিক বিষয়গুলো নিয়ে এক সঙ্গে কাজ করার কথাও জানিয়েছেন রাম মাধব।

এবারের নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা, অর্থাৎ দুই-তৃতীয়াংশ আসন পেয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। বেসরকারিভাবে ঘোষিত ফলাফলে ২৯৮টি আসনের মধ্যে এককভাবে ২৫৯টি আসনে জয় পেয়েছে দলটি।

এছাড়াও আওয়ামী লীগের শরিক দল জাতীয় ২০টি, বিএনপি ৬টি, গণফোরাম ২টি, বিকল্পধারা ২টি, জাসদ ২টি, ওয়ার্কার্স পার্টি ৩টি, তরিকত ফেডারেশন ১টি এবং স্বতন্ত্র ৩টি আসন পেয়েছে। মোট ৩০০ আসনের মধ্যে একটি আসনে নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে আর আরেকটি আসনে একজন প্রার্থী মারা যাওয়ায় নির্বাচন হয়নি।

মূলত ভোটের ফলাফলে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের ধারের কাছেও যেতে পারেনি ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে থাকা জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

এর আগে, ২০১৪ সালে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রধান বিরোধীদল বিএনপির বর্জনের মধ্যে ৩০০ সংসদীয় আসনের মধ্যে ২৬৩টি আসনে জয়লাভ করে আওয়ামী লীগ। যার মধ্যে ১৫৪টি আসনের প্রার্থীদের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।

২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট ২৬৩টি আসনে জয়লাভ করেছিল। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ পায় ২৩০টি আসন।

ওই নির্বাচনে বিরোধীদলে থাকা বিএনপি নেতৃত্বাধীন চারদলীয় ঐক্যজোট পেয়েছিল ৩৩টি আসন। আর স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জয়লাভ করে ৪টি আসনে।

Sharing is caring!

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares