নিজস্ব প্রতিনিধি॥
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই জেলা রিটানিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত জেলা রিটার্ণিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান বাছাই কার্যক্রম পরিচালনা করেন। তাকে সহযোগিতা করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শওকত ওসমান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির পিপিএম, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিনসহ ৫টি আসনের সহকারী রিটানিং কর্মকর্তাগণ।

চাঁদপুর-৪ (ফরিদগঞ্জ) সংসদীয় আসনে আওয়ামীলীগ ও বিএনপি থেকে মোট ১৭জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিল। এর মধ্যে ৪জনের মনোয়নপত্র বাতিলা করা হয়।

দীর্ঘ জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য, শিল্পপতি আলহাজ¦ ড. মুহাম্মদ শামছুল হক ভূঁইয়া (আওয়ামী লীগ নৌকা)। এ আসনে নৌকা প্রতীকে দ্বিতীয় মনোনয়ন প্রাপ্ত মোহাম্মদ শফিকুর রহমান (আওয়ামী লীগ নৌকা), এম এ হান্নান (বিএনপি প্রার্থী মার্কা ধানের শীষ), কাজী রফিকুল ইসলাম (বিএনপি মার্কা ধানের শীষ), মো. জাহিদুল ইসলামন রোমান (স্বতন্ত্র), মাইনুল ইসলাম (জাতীয় পার্টি লাঙ্গল), মকবুল হোসেন (ইসলামী আন্দোলন হাতপাখা), আনিসুজ্জামান ভূঁইয়া (বাসদ মার্কা মই), দেলোয়ার হোসেন পাটওয়ারী (ন্যাপ), বাচ্চু মিয়া ভাষানী (জাকের পার্টি গোলাপ ফুল), গোলাম মাহমুদ ভূঁইয়া মানিক (ইসলামী ফ্রন্ট মার্ক মোবাতি), মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া (মুসলিম লীগ)সহ মোট ১৩জনের মনোনয়নপত্র বৈধ হয়েছে।

এ দিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী লায়ন হারুনুর রশিদ এক শতাংশ ভোটের বৈধতা না পাওয়ায়, স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ, স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু জাফর মো. ছালেহের ও অসম্পূন্ন কাগজ পত্রের কারণে বিএনপি প্রার্থী রিয়াজ উদ্দিন নসুর মনোননয়পত্র বাতিল করা হয়।

Share Button