ক্রীড়া ডেস্ক:

নিজেদের কন্ডিশনে পেস-সুইং দিয়ে বাংলাদেশকে কুপোকাত করেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দুই টেস্টেই টাইগারদের তিন দিনে হারের তিক্ত স্বাদ দিয়েছিল ক্যারিবীয়রা। ৫ মাসের ব্যবধানে সেই বদলা নিয়ে ফেলল সাকিব বাহিনী। নিজেদের ডেরায় উইন্ডিজকে স্পিন বিষে নীল করে ছাড়ল তারা। তাও আবার ইতিহাস গড়ে।

ঢাকা টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ইনিংস ও ১৮৪ রানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। এটিই ইনিংস ব্যবধানে প্রথম জয় টাইগারদের। সবচেয়ে বড় জয়ও। এর আগে সবচেয়ে বড় ব্যবধানে জয় ছিল ২২৬ রানে। ২০০৫ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এ ব্যবধানে জেতে তারা।

দুর্দান্ত জয়ে ২ ম্যাচ সিরিজে ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট বাহিনীকে ধবলধোলাই করল বাংলাদেশ। এর আগে সফরকারীদের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টে ৬৪ রানে জিতেছিল স্বাগতিকরা। সেই সঙ্গে মধুর প্রতিশোধও নেয়া হয়ে গেল সাকিব-মুশফিকদের।

গেল জুলাইয়ে সফরে গেলে বাংলাদেশকে নাকানিচুবানি খাইয়ে দুই টেস্টই তিন দিনে জিতে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এবার সফরে আসা দ্বীপসমূহের দলটিকে একইভাবে হারাল স্টিভ রোডসের শিষ্যরা। এতে বেশ খুশি হওয়ার কথা কোচেরও। কারণ, সেটি ছিল তার প্রথম বিদেশ সফর। সেখানে ভীষণ হতাশ হতে হয় রোডসকে।

বদলা নেয়ার নেপথ্য নায়ক সাকিব আল হাসান। গোটা সিরিজে দুর্দান্ত পারফরম করে সিরিজসেরা হয়েছেন তিনি। পার্শ্বনায়ক অনেকেই। তবে শেষ ম্যাচে আলো ছড়ানোই নাম চলে আসছে মেহেদী হাসান মিরাজের। প্রথম ইনিংসে নিয়েছিলেন ৫৮ রানে ৭ উইকেট এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৯ রানে ৫টি। ১১৭ রানে ১২ উইকেট, বাংলাদেশের হয়ে এক ম্যাচে সেরা বোলিংয়ের কীর্তি এটি। ম্যাচসেরার পুরস্কার উঠেছে তার হাতে।

Share Button