অান্তর্জাতিক ডেস্ক:

ভারতের আসামের তিনসুকিয়ায় পাঁচ বাঙালিকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় উলফা জঙ্গিদের সন্দেহ করা হচ্ছে। বৃহস্পতিবার রাতে তিনসুকিয়া জেলার ধলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে।

এসব বাঙালিকে ডেকে নিয়ে সেতুর পাশে বসিয়ে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। নিহতদের নাম শ্যামলাল বিশ্বাস (৬০), অনন্ত বিশ্বাস (১৮), অবিনাশ বিশ্বাস (২৩), সুবল দাস (৬০) ও ধনঞ্জয় নমশূদ্র (২৩)। আহত হয়েছেন দুজন।

পুলিশ জানায়, এদিন রাতে জংলা পোশাক পরা, মুখে কালো কাপড় বাঁধা সশস্ত্র পাঁচ-ছয়জন যুবক বাঙালি অধ্যুষিত খেরবাড়ি গ্রামে ঢোকে। রাত ৮টা নাগাদ একটি দোকানের সামনে কয়েকজন বাসিন্দা গল্প করছিলেন।

তারা বেছে বেছে কয়েকজনকে আলোচনা আছে বলে ডেকে ভূপেন হাজারিকা সেতুর কাছে নিয়ে যায়। এর পর তাদের গুলি করে হত্যা করা হয়।-খবর আনন্দবাজারপত্রিকা অনলাইনের।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সবাইকে জোর করে একসঙ্গে বসানোর পরই স্বয়ংক্রিয় রাইফেল থেকে এলোপাতাড়ি গুলি চালানো হয়। ঘটনাস্থলেই মারা যান একই পরিবারের তিন সদস্যসহ পাঁচজন। ৩০০ মিটার দূরেই পুলিশ চৌকি। তবে পুলিশ আসার আগেই রাইফেলধারীরা পালায়।

আসামে নাগরিকত্ব আইন সংশোধনী এবং নাগরিক তালিকাবিরোধী বাঙালিদের নিশানা করার হুমকি আগেই দিয়েছিল উলফাগোষ্ঠী।

কংগ্রেসের অভিযোগ, উলফা যে বাঙালিদের মারার চেষ্টা করছে, এ কথা সরকার ও পুলিশ জানত। তার পরও নিরাপত্তার ব্যবস্থা হয়নি।

Share Button