আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
মালয়েশিয়ার সাধারণ নির্বাচনে পরাজিত সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক ও তার স্ত্রীর মালয়েশিয়া ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির অভিবাসন বিষয়ক কর্মকর্তারা।

বিবিসির এক খবররে জানাযায়, পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ছুটি কাটাতে শনিবার দেশের বাইরে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন, নাজিবের এমন মন্তব্যের কিছুক্ষণ পরই তার দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞার খবর আসে বলে। সাবেক প্রধানমন্ত্রীও তার দেশ ছাড়ে নিষেধাজ্ঞার খবর নিশ্চিত করেন টুইটারের মাধ্যমে। নজিব জানান কর্তপক্ষের এর সিদ্ধান্ত তিনি মেনে চলবেন। তবে এ সিদ্ধান্তের কারন তিনি জানেন না বলেও জানান।

প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় বিনিয়োগ তহবিল ওয়ানএমডিবি থেকে ৭০ কোটি মার্কিন ডলার আত্মসাতের অভিযোগ আছে নাজিবের বিরুদ্ধে। দেশের অর্থনীতি গতিশীল করার পরিকল্পনায় ২০০৯ সালে এই ওয়ানএমডিবি তহবিল গঠন করা হয়েছিল। তহবিলে তিনশ কোটি ডলারের বেশি অর্থ ছিল।

২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃপক্ষ তাদের কাছে এ সংক্রান্ত তথ্য প্রমাণ থাকার কথা জানিয়ে অন্তত একশ কোটি ডলারের সম্পদ জব্দ করার উদ্যোগ নেয়। যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল কোর্টে এ সংক্রান্ত একটি মামলাও হয়। মার্কিন বিচার বিভাগের দায়ের করা ওই মামলার কাগজপত্রে মালয়েশিয়ার সদ্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের নাম ইঙ্গিত করা হয়।

নাজিব শুরু থেকেই তার বিরুদ্ধে আনা এ অভিযোগ অস্বীকার করছেন। বিরোধীদের অভিযোগ, ক্ষমতার অপব্যবহার করে মালয়েশিয়ার তদন্ত থেকে অব্যাহতি নিয়েছিলেন নাজিব। দুর্নীতির এ অভিযোগকে ঘিরেই মাহাথির মোহাম্মদের সঙ্গেও দূরত্ব তৈরি হয় নাজিবের

Share Button