অনলাইন ডেস্ক:

জাতীয় পাটির চেয়ারম্যান হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ বলেছেন, আমরা চাচ্ছি একটা সুষ্ঠু নির্বাচন হউক। নির্বাচন যদি সুষ্ঠু হয় ইনশাআল্লাহ জাতীয় পাটি ক্ষমতায় আসতে পারবে।

আজ শনিবার দুপুরে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার বাঙ্গালিপুর সরকার পাড়া গ্রামে জাতীয় পার্টির কার্যালয়ের সামনে এক কর্মী সভায় তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, যে অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। আরতো কোনো দল নেই, বিএনপির অবস্থা ছিন্ন ভিন্ন। নির্বাচনে আসতে পারবে কিনা জানি না। আমরা নির্বাচনে আসলে সরকারের যে অবস্থা, সরকারের যে সুনাম ক্ষুণ্ণ হয়েছে, তাতে আমার মনে হয় জাতীয় পাটি ক্ষমতায় আসার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টি মহাসচিব রুহুল আমীন হাওলাদার, বিরোধী দলীয় হুইপ, নীলফামারী-৪ (সৈয়দপুর-কিশোরগঞ্জ আংশিক) আসনের সংসদ সদস্য নীলফামারী জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক শকত চৌধুরী, জেলা জাতীয় পাটির সদস্য সচিব সাজ্জাদ পারভেজ প্রমূখ।

নিজেদের অবস্থানের বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা কারো সাথে নাই, আমরা আমাদের সাথে আছি, জাতীয় পাটি একক নির্বাচন করবে। জাতীয় পাটি বিরোধী দল, আগামীতে আমরা এককভাবে নির্বাচন করবো, ৩শ আসনে প্রার্থী দিব।

কোটা সংস্কারের দাবিতে ছাত্রদের আন্দোলনের বিষয়ে তিনি বলেন, অনেক ঘটনা ঘটেছে। এ সম্পর্কে আমি কোনো কমেন্ট করি নাই। কেননা আমার মনে হয় মুক্তিযোদ্ধাদের যে কোটাটি দেওয়া হয়েছে তা অযৌক্তিক। এখন যদি কম করে দেওয়া হয় মোটামুটি ভালো হবে। ছাত্রদের মনে ক্ষোভ ছিল, দুঃখ ছিল, দুঃখের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে। প্রধানমন্ত্রী উপলদ্ধি করেছেন, কোটা বাতিল করেছেন, তবে আমার মনে হয় একেবারে বাতিল করা ঠিক হবে না।

জাতীয় পাটির চেয়ারম্যান হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ বলেছেন, আমরা চাচ্ছি একটা সুষ্ঠু নির্বাচন হউক। নির্বাচন যদি সুষ্ঠু হয় ইনশাআল্লাহ জাতীয় পাটি ক্ষমতায় আসতে পারবে।

আজ শনিবার দুপুরে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার বাঙ্গালিপুর সরকার পাড়া গ্রামে জাতীয় পার্টির কার্যালয়ের সামনে এক কর্মী সভায় তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, যে অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। আরতো কোনো দল নেই, বিএনপির অবস্থা ছিন্ন ভিন্ন। নির্বাচনে আসতে পারবে কিনা জানি না। আমরা নির্বাচনে আসলে সরকারের যে অবস্থা, সরকারের যে সুনাম ক্ষুণ্ণ হয়েছে, তাতে আমার মনে হয় জাতীয় পাটি ক্ষমতায় আসার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টি মহাসচিব রুহুল আমীন হাওলাদার, বিরোধী দলীয় হুইপ, নীলফামারী-৪ (সৈয়দপুর-কিশোরগঞ্জ আংশিক) আসনের সংসদ সদস্য নীলফামারী জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক শকত চৌধুরী, জেলা জাতীয় পাটির সদস্য সচিব সাজ্জাদ পারভেজ প্রমূখ।

নিজেদের অবস্থানের বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা কারো সাথে নাই, আমরা আমাদের সাথে আছি, জাতীয় পাটি একক নির্বাচন করবে। জাতীয় পাটি বিরোধী দল, আগামীতে আমরা এককভাবে নির্বাচন করবো, ৩শ আসনে প্রার্থী দিব।

কোটা সংস্কারের দাবিতে ছাত্রদের আন্দোলনের বিষয়ে তিনি বলেন, অনেক ঘটনা ঘটেছে। এ সম্পর্কে আমি কোনো কমেন্ট করি নাই। কেননা আমার মনে হয় মুক্তিযোদ্ধাদের যে কোটাটি দেওয়া হয়েছে তা অযৌক্তিক। এখন যদি কম করে দেওয়া হয় মোটামুটি ভালো হবে। ছাত্রদের মনে ক্ষোভ ছিল, দুঃখ ছিল, দুঃখের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে। প্রধানমন্ত্রী উপলদ্ধি করেছেন, কোটা বাতিল করেছেন, তবে আমার মনে হয় একেবারে বাতিল করা ঠিক হবে না।

জাতীয় পাটির চেয়ারম্যান হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ বলেছেন, আমরা চাচ্ছি একটা সুষ্ঠু নির্বাচন হউক। নির্বাচন যদি সুষ্ঠু হয় ইনশাআল্লাহ জাতীয় পাটি ক্ষমতায় আসতে পারবে।

আজ শনিবার দুপুরে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার বাঙ্গালিপুর সরকার পাড়া গ্রামে জাতীয় পার্টির কার্যালয়ের সামনে এক কর্মী সভায় তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, যে অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। আরতো কোনো দল নেই, বিএনপির অবস্থা ছিন্ন ভিন্ন। নির্বাচনে আসতে পারবে কিনা জানি না। আমরা নির্বাচনে আসলে সরকারের যে অবস্থা, সরকারের যে সুনাম ক্ষুণ্ণ হয়েছে, তাতে আমার মনে হয় জাতীয় পাটি ক্ষমতায় আসার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টি মহাসচিব রুহুল আমীন হাওলাদার, বিরোধী দলীয় হুইপ, নীলফামারী-৪ (সৈয়দপুর-কিশোরগঞ্জ আংশিক) আসনের সংসদ সদস্য নীলফামারী জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক শকত চৌধুরী, জেলা জাতীয় পাটির সদস্য সচিব সাজ্জাদ পারভেজ প্রমূখ।

নিজেদের অবস্থানের বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা কারো সাথে নাই, আমরা আমাদের সাথে আছি, জাতীয় পাটি একক নির্বাচন করবে। জাতীয় পাটি বিরোধী দল, আগামীতে আমরা এককভাবে নির্বাচন করবো, ৩শ আসনে প্রার্থী দিব।

কোটা সংস্কারের দাবিতে ছাত্রদের আন্দোলনের বিষয়ে তিনি বলেন, অনেক ঘটনা ঘটেছে। এ সম্পর্কে আমি কোনো কমেন্ট করি নাই। কেননা আমার মনে হয় মুক্তিযোদ্ধাদের যে কোটাটি দেওয়া হয়েছে তা অযৌক্তিক। এখন যদি কম করে দেওয়া হয় মোটামুটি ভালো হবে। ছাত্রদের মনে ক্ষোভ ছিল, দুঃখ ছিল, দুঃখের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে। প্রধানমন্ত্রী উপলদ্ধি করেছেন, কোটা বাতিল করেছেন, তবে আমার মনে হয় একেবারে বাতিল করা ঠিক হবে না।

Share Button