মোঃ জামাল হোসেন :
শাহরাস্তির সূচীপাড়া উত্তর ইউনিয়নে দিন ব্যাপী গণসংযোগ ও উঠান বৈঠকে মিলিত হয়েছেন সাবেক স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ও নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় সম্পর্কীত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও জাতীয় সংসদের প্যানেল স্পীকার-১ মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি ।

২০ মার্চ মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে দিন ব্যাপী উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে ও সূচীপাড়া উত্তর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সার্বিক সহযোগীতায় এ গণসংযোগ ও উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। উঠান বৈঠকের অংশ হিসেবে শোরসাক মালের বাড়ি, চেড়িয়ারা, বসুপাড়া-বড়–য়া সপ্রাবি সংলগ্ন ও দৈকামতা মীর বাড়ীতে উঠান বৈঠক ও গণসংযোগে অংশ নেন।

উপজেলা আওয়ামীলীগ যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক ও সূচীপাড়া ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ হুমায়ুন কবির লিটনের সভাপতিত্বে ও মোঃ আবু ইউছুপ মিলনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সফল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় সম্পর্কীত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, আমরা যা কিছু করছি, সকল আয়োজনই নতুন প্রজন্মের জন্য। সেই লক্ষেই আমরা আমাদের লক্ষ্য অনুযায়ী কাজ করে চলছি। বিগত সরকারগুলো জনগণের কথা চিন্তা করলে দেশ আরো উন্নত হতো। নারীদের পিছনে রেখে দেশের কোন উন্নয়নই সম্ভব নয়। উন্নয়ন রাজনীতিসহ সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে নারীদের অংশগ্রহন বাধ্যতামূলক রাখতে হবে। বিধবা, বয়স্ক, স্বামী পরিত্যাক্তাসহ সংশ্লিষ্ট ভাতাগুলোর পরিমান ক্রমান্বয়ে বাড়াতে হবে। যার নূণ্যতম হার হবে ১৫শত টাকা। জননেত্রী শেখ হাসিনা নারীদের ভাগ্য উন্নয়নে বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহন ও তা বাস্তবায়ন করছেন। সরকার শিক্ষা ক্ষেত্রে উপমহাদেশে বাংলাদেশ আজ রোল মডেল। বিভিন্ন দেশ আজ তা অনুস্মরণ ও অনুকরণ করছে। রাস্তা-ঘাট, পুল-কালভার্ট, শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন ও মানুষের আত্মসামাজিক উন্নয়ণ সহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড তুলে ধরে তিনি বক্তব্য রাখেন।

তিনি আরো বলেন, বেকার জীবন অভিশপ্ত জীবন, বেকারদের ভাগ্য উন্নয়ন ও ঘরে ঘরে চাকুরীর জন্য বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহন ও বাস্তবায়ন করে চলেছেন। অচিরে তা সমাধান হবে। আগামীদিন অনেক নতুন লোকের ব্যাপক কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে। আমাদের মূল লক্ষ্য জনগণের আশাআকাংখার প্রতিফলন ঘটানো। জঙ্গীবাদ ও জামায়েত ইসলামী মওদুদীর ইসলামের নামে জনগণ ও নারীদের বিভ্রান্ত করছে। কোন সম্প্রদায়িক শক্তি বিনষ্টের জন্য প্রয়োজনে আরেকটি মুক্তিযুদ্ধ করবো। চলতি বৎসরের নভেম্বর-ডিসেম্বরের মধ্যেই একাদশ সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেজন্য আপনাদের প্রস্তুত থাকবে হবে। একাদশ সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী ও বেগবান করবেন।

তিনি আরো বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকায় যত সমস্যা ছিলো আপ্রাণ চেষ্টা করে সমস্যাগুলো দুর করার পদক্ষেপ নিয়েছি। বিগত সরকারের আমলে মাত্র ৫কিলোমিটার রাস্তা পাকা থাকলেও বর্তমান সরকারের আমলে অসংখ্য রাস্তা-ঘাট, ব্রীজ-কালবার্ট নির্মান করেছি। উপজেলার প্রধান সড়কগুলোর ব্যাপারে জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সেতুমন্ত্রী ওবায়েদুল কাদেরকে সড়কের সমস্যাগুলো সহসায় নিরসন করার জন্য লিখিতভাবে ডিও লেটার দিয়েছি। ইনশাল্লাহ আগামী ২০১৯ সালের মধ্যে সড়কের সমস্যা দূর হবে বলে আমি আশা করছি।

উঠান বৈঠককালে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পৌর মেয়র হাজী আবদুল লতিফ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ উল্যাহ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য মোঃ কামরুজ্জামান মিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক চৌধুরী মোঃ মোস্তফা কামাল, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জেড এম আনোয়ার, সূচীপাড়া উত্তর ইউপি আ’লীগ সভাপতি মোস্তফা কামাল মজুমদার, সাধারণ সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক আহসান মঞ্জুরুল ইসলাম জুয়েল, যুগ্ম-আহবায়ক ওমর ফারুক দর্জি, মাহফুজুল কবির, মেহার উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মনির হোসেন।

এসময় অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মোঃ একরাম হোসেন ইকবাল, আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ সেলিম খান, মোঃ নজরুল ইসলাম, মোঃ মন্টু সহ উপজেলা আওয়ামীলীগ, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ, মহিলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী অঙ্গসংগঠনের বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Share Button