বিশেষ হাজীগঞ্জ

ইউপি সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর অপকর্মে জড়িয়ে পড়ে
গেনু বাহিনীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ বেলঘরবাসী

নিজস্ব প্রতিনিধি:
হাজীগঞ্জের বেলঘর গ্রামের গেনু বাহিনীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে বেলঘরবাসী। উপজেলার হাটিলা পূর্ব ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আব্দুল গনি (গেনু মেম্বার) মেম্বার তার পারিবারের লোকজন দিয়ে জমি দখল, বিচার পাইয়ে দেওয়ারন নামে টাকা আত্মসাৎসহ নানা অভিযোগ ফুঁসে উঠছে।

একের পর এক অপকর্মের ফলে সাধারণ মানুষ জিম্মি হয়ে আছে। ভয়ে কেউ মুখ খুলছে না। গেনু বাহিনীর অত্যাচারের প্রতিবাদ করতে এসে হামলার শিকার হয়েছেন অনেকে। রাতের অন্ধকারে রাস্তার চলার পথে এলাকার নিরীহ যুবকদের বেধড়ক মারধর করে গেনু বাহিনীর সদস্যরা। বিচার চাইতে গিয়ে হয়রানি ও হামলার শিকার হতে হয়।

একাধিক ফৌজদারি মামলার আসামী আব্দুল গনি  (গেনু মেম্বার) মেম্বার এলাকায় বহাল তবিয়ে চলছে। সংখ্যালঘুদের ভূমি সংক্রান্ত জটিলতা টাকা দিলে বিচার মিলে। জায়গা দখলের কন্ট্রাক্টসহ নানা অনিয়মে জড়িয়ে পড়ছে এ ইউপি সদস্য। তার পরিবার কেন্দ্রীক অত্যাচারের স্ট্রীম রোলার থেকে পরিত্রাণ চায় এলাকাবাসী। পরিবার কেন্দ্রীক গেনু বাহিনীর নেতৃত্ব দিয়ে আসছে। তার ছেলে মেিেহ হাসান, নাজমুল , রাজা, ভাতিজা রাসেদ, মাসুদসহ ২০ থেকে ২৫জন যুবক।

গত ২০ মে  হাটিলা পূর্ব ইউনিয়ন তথ্য উদ্যোক্তা কামাল হোসেনের বাড়িতে গেনু মেম্বারের ছেলে মেহেদিসহ ৭-৮জন যুবক ডাব চুরি করার সময়  কামালের স্ত্রী উম্মে খাদিজা প্রতিবাদ করতে এগিয়ে যায়। মেহেদির নেতৃত্বে বেপোয়ারা যুবকরা খাদিজাকে মারধর করে গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নেয়। এ বিষয়টি গনি ম্বেম্বারকে জানায় কামাল হোসেন। গনি মেম্বার এর সূরাহা না করে ২০-২৫জন লাঠিয়াল বাহিনী দিয়ে কামালের বসত ঘর ভাংচুর করে। এ ঘটনায় কামাল হোসেন বাদী হয়ে হাজীগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ে করে।
হাটিলা পূর্ব ইউনিয়নের ইউপি সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর পরই  রাজারপুরা গ্রামের আব্দুল মতিনের ছেরে আবুল বাসার দোকানের সামনে হেঁটে যাওায়ার উচ্চস্বরে কথা বলায় ইস্যুতে মারধর করে গনি মেম্বারের মেহেদি, নাজমুল। এ ঘটনায় শালিশী বৈঠকে ১০ হাজার টাকা জরিমান দেয় গনি মেম্বার। বেলঘর ১নং ওয়ার্ড আবুল হাসেমের ছেলে আলী আশরাফকে নামাজরত অবস্থায় মারধর। আশরাফ জামায়াতে নামাজ আদায় করার সময় গনি মেম্বারের ছেলেকে পিছনের কাতারে দাঁড়ানোর কথা বলায় মসজিদের ভেতরেই আশরাফকে মারধর করে। একই গ্রামের মোতালেবের ছেলে সোহাগকে রাস্তা মাঝখান দিয়ে হাটার সিনিয়নদের সম্মান না দেওয়ার অপরাধে মারধর করে গনি মেম্বারের ছেলে নাজমুল রাজা ভাতিজা রাসেদ, মাসুদ।

মাসখানেক পূর্বে একই গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে সিএনজি ড্রাইভার সাহাদাতকে সিএনজি ভাড়া চাওয়ায় হামলা করে গনি মেম্বারের ছেলে নাজমুল, রাজা। বেলঘর গ্রামের ছিদ্দিকুর রহমানের ছেলে আবুল কালামের জায়গায় জোরপূর্বক তারই ভাই আবুল খায়েরের দোকান নির্মাণ করে দেয়। এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ থানায় মামলা করে আবুল কালাম। পালের বাড়ি, মজুমদার বাড়ি, দত্তের বাড়ি, মানুষকে জিস্মি করে রেখে গনি বাহিনী। বেলঘর আড়ং বাজারে মঞ্জুর আলমের জায়গায় দোকানঘর নির্মাণ করার পর এলাকাবাসী চাপের মুখে দোকান ঘর তুলে নেয় গনি। বেলঘর বাজারে গনি মেম্বারের নেতৃত্বে আওয়ামীলীগের কার্যালায় ভাংচুরের ঘটনায় জড়িত রয়েছে বলে জানা যায়, পালের বাড়ির রাস্তার চলাচলের পথের বেড়া দিয়ে বন্ধ করে দেয় গনি মেম্বার। গেনু মেম্বারের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে বেলঘরবাসী পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Sharing is caring!

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares