শাহরাস্তি

শাহরাস্তিতে গ্রামীণ সড়কের ইট তুলে বাড়িতে নিয়ে গেলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

শাহরাস্তি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর মোহাম্মদ আদেল গ্রামীণ সড়কের ইট তুলে তার বাড়িতে নিয়ে গেছেন। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। ইটগুলো ওই নেতার বাড়ীর উঠানে স্তুপ করে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় উপজেলা এলজিইডি অফিসকে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

তবে এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আদেল বলেন, আমার বাড়ির পাশে রাস্তা এবং আমি এর ঠিকাদার। রাস্তা মেকাডম, মেরামত কাজ করতে ইটগুলো রাখার জায়গা না থাকায় আমি বাড়ি নিয়ে রেখেছি। আমার প্রতিপক্ষরা এনিয়ে বাড়া-বাড়ি করছে।

উপজেলার চিতোষী পশ্চিম ইউনিয়নের খেড়িহর বাজার হতে খেড়িহর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় পর্যন্ত রাস্তাটি ইউনিয়ন পরিষদের আওতাধীন। বিগত ২০১২-২০১৩ অর্থ বছরে ইউনিয়ন পরিষদের এলজিএসপি-২ প্রকল্প হতে ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা সলিং করার জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়। এরপর গত ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরে গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার (কাবিটা)-এর নির্বাচনী এলাকাভিত্তিক ২য় পর্যায় প্রকল্প হতে উক্ত রাস্তা মেরামত ও সলিং করার জন্য ৩ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। বর্তমানে নতুন করে পাকাকরণ কাজ শুরু করা হয়েছে। ২০ মে স্থানীয় সংসদ সদস্য সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম উক্ত রাস্তাটির ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। এর কয়েকদিন পর আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর মোঃ আদেল রাস্তার ইট তুলে তার নিজ বাড়িতে (তেলী বাড়ি) নিয়ে যায়। সরেজমিনে গিয়ে তার বাড়ির উঠানে ইটগুলো পড়ে থাকতে দেখা যায়। এ সময় ওই বাড়ির জাহাঙ্গীর মোঃ আদেলের ভাতিজা পরিচয়ে এক যুবক জানায়, তিনি সড়কটির কাজের বিল না পাওয়ায় ইটগুলো নিয়ে এসেছেন। এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউ.পি. চেয়ারম্যান জোবায়েদ কবির বাহাদুর জানান, সড়কটি ইউনিয়ন পরিষদের আওতাধীন। মাননীয় এম.পি. মহোদয় সড়কটির ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেছেন। আমি রাস্তা থেকে ইট তুলে নিয়ে যাওয়ার সংবাদটি পেয়েছি। আমি তাঁকে এ কাজ না করার জন্য বলেছি, এটি অন্যায় হয়েছে। আমরা অনুমতি পেলে ইটগুলো সরিয়ে অন্য রাস্তায় স্থাপন করার উদ্যোগ গ্রহণ করতাম।

শাহরাস্তি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাবিব উল্লাহ মারুফ জানান, বিষয়টি আমি খতিয়ে দেখছি। সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানকে বিষয়টি দেখতে বলেছি। তবে এই ইট কেউ নিতে পারবে না। আইনগতভাবেই পদক্ষেপ নেয়া হবে।

Sharing is caring!

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares